শ্রেণিকক্ষে শিক্ষক প্রবেশ করলে আমরা কেন দাঁড়াই? - সপ্তম/৭ম শ্রেণির পড়া

শ্রেণিকক্ষে শিক্ষক প্রবেশ করলে আমরা কেন দাঁড়াই? - সপ্তম/৭ম শ্রেণির পড়া - কেন আমরা শ্রেণিকক্ষে শিক্ষক প্রবেশ করলে দাঁড়িয়ে যায়
Follow Our Official Facebook Page For New Updates


Join our Telegram Channel!

শ্রেণিকক্ষে শিক্ষক প্রবেশ করলে আমরা কেন দাঁড়াই? - সপ্তম শ্রেণির পড়া - ইতিহাস ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুশীলন বই - Why do we stand when the teacher enters the classroom

শ্রেণিকক্ষে শিক্ষক প্রবেশ করলে আমরা কেন দাঁড়াই? - সপ্তম/৭ম শ্রেণির পড়া

আজ আমাদের আলোচনার বিষয় সপ্তম শ্রেণির ইতিহাস ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুশীলন বই এর ২য় অধ্যায়: যৌক্তিক সিদ্ধান্ত নেওয়া যায় কীভাবে? এর অনুসন্ধানী কাজ-৩ এর সম্পূর্ণ সমাধান সম্পর্কে জানব।

অনেক আগে থেকেই আমাদের দেশে শ্রেণিকক্ষে শিক্ষক প্রবেশ করলে আমরা দাড়িয়ে যাই। সেটা কি জন্য? আর কেনই বা দাঁড়ায় বিস্তারিত সব জানার চেষ্টা করব।


শ্রেণিকক্ষে শিক্ষক প্রবেশ করলে আমরা যে জন্য দাঁড়িয়ে যাই

নিচের ছবিতে আমরা লক্ষ্য করলে দেখতে পাই, অনুসন্ধানী কাজের জন্য কিছু নির্দেশনা আমাদের দিয়ে দেয়া হয়েছে। চলো সেগুলো সমাধান করা যাক।

শ্রেণিকক্ষে শিক্ষক প্রবেশ করলে আমরা কেন দাঁড়াই? - সপ্তম/৭ম শ্রেণির পড়া

সমাধান:

বিষয়বস্তু: বাংলাদেশ ও পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে প্রচলিত রীতি-নীতি

অনুসন্ধানের প্রশ্ন:

শ্রেণিকক্ষে শিক্ষক প্রবেশ করলে আমরা কেন দাঁড়াই? 

উত্তর: শিক্ষককে সম্মান প্রদর্শনের জন্য আমরা শ্রেণিকক্ষে শিক্ষক প্রবেশ করলে দাঁড়াই।

কবে থেকে এই প্রচলন এসেছে?

উত্তর: সুদূর অতীত থেকেই এ নিয়মটি আমাদের দেশে প্রচলন আছে। অনেকেই বলেন, ইংরেজদের আমল থেকে এই প্রথা চালু হয়ে এসেছে।

কেন এই রীতির প্রচলন হলো?

উত্তর: শিক্ষক যখন শ্রেণি কক্ষে প্রবেশ করেন তখন দাঁড়িয়ে থাকা একটি ঐতিহ্যবাহী একটি চিহ্ন। শিক্ষকরা সমাজের সম্মানীয় ব্যক্তি। তাঁরা আমাদের শিক্ষাদান করেন। যা আমাদের মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে সাহায্য করে । এ বিষয়গুলো বিবেচনা করে শিক্ষকের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের জন্য এ রীতির প্রচলন করা হয়েছে।

আর কোন কোন দেশে এ ধরনের প্রচলন আছে? কোন কোন দেশে নেই? 

উত্তর: উপমহাদেশের বিভিন্ন দেশে এসব রাীতির প্রচলন রয়েছে। যেমন- ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, চীন, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া ইত্যাদি দেশে এ রীতি প্রচলিত আছে। আর ব্রাজিল, ইতালি ও ইসরায়েল এসব দেশে এই রীতির প্রচলন নেই।


প্রশ্নে যে মূল বিষয়বস্তুগুলো রয়েছে:-

তথ্য উৎস: 
বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা, ম্যাগাজিন, ইন্টারনেট, শিক্ষামূলক ওয়েবসাইট (www.helptrickbd.com) এবং শ্রেণিশিক্ষক।
তথ্য সংগ্রহের পদ্ধতি: 
ইন্টারনেটে helptrickbd.com ওয়েবসাইট ভিজিট করব এবং পরিবারের সহায়তা নেব।

দেশ রীতি-নীত কারণ
১. বাংলাদেশ গর্ভাবস্থায় জোড়া কলা খাওয়া যাবেনা। বাংলাদেশের কিছু কিছু অঞ্চলের মানুষ বিশ্বাস করেন যে, গর্ভাবস্থায় কোন নারী যদি জোড়া কলা খায়, তাহলে তার জমজ সন্তান হবে।
২. জাপান জাপানে বিয়ের সময় বর ও কনে তিনটি কাপের পানীয় থেকে তিন বার চুমুক দেন । এরপর তাঁদের বাবা-মা একইভাবে সেই কাপগুলোতে চুমুক দেন । জাপানিদের বিশ্বাস, এতে পরিবারের মধ্যে বন্ধন পাকাপোক্ত হয়। সম্পর্ক অনেক বেশি মজবুত হয়।
৩. থাইল্যান্ড থাইল্যান্ডে একে অপরের গায়ে পানি ছিটিয়ে নববর্ষের উৎসব পালন করে। তারা মনে করে নববর্ষের দিনে গায়ে পানি ছেটালে বিগত বছরের পাপ শরীর থেকে ধুয়ে মুছে যাবে ।
৪. চীন চীনে শিশুর প্রথম জন্মদিনে বাবা- মা শিশুকে একটি কয়েন, একটি পুতুল আর একটি বইয়ের মাঝখানে রাখেন ৷ কয়েন, পুতুল আর বইয়ের মধ্যে শিশু যেটা আগে ধরবে, বুঝতে হবে সেদিক থেকেই সমৃদ্ধি অর্জন করবে সে।

তথ্য বিশ্লেষণ: 

আমি বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা, ম্যাগাজিন এবং ইন্টারনেটের মাধ্যমে বাংলাদেশ ও পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে প্রচলিত রীতি-নীতি সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করেছি। এ তথ্যগুলো একত্রিত করে একটি ছকে সাজিয়েছি এবং এটা উপলব্ধি করতে পেরেছি যে, বাংলাদেশ এবং বিশ্বের অন্যান্য দেশসমূহে অদ্ভুত কিছু রীতি-নীতি অনুসরণ করা হয়। এ রীতি-নীতিগুলো বংশ পরম্পরায় প্রচলিত থাকায় এখনও মানুষ এগুলো অনুসরণ করছে।

ফলাফল বা সিদ্ধান্ত:

উক্ত তথ্য বিশ্লেষণ করে আমরা বেশ কিছু সিদ্ধান্তে পৌঁছেছি। তা হল-
  • বিভিন্ন দেশের জনগোষ্ঠীর মাঝে গুরুত্বপূর্ণ অনেক রীতি-নীতি রয়েছে।
  • এসকল রীতি-নীতিগুলো বিভিন্ন জাতি-গোষ্ঠীর সংস্কৃতির গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ।
  • এসকল রীতি-নীতি মান্য করা বাধ্যতামূলক না হলেও মানুষ কল্যাণের কথা চিন্তা করে এগুলো অনুসরণ করে ।

উপস্থাপন: 

আসসালামু আলাইকুম, আমি ................ (খালি ঘরে নাম দিবে)। আমরা জানি যে, আমাদের সমাজে শিক্ষক শ্রেণিকক্ষে প্রবেশ করলে দাঁড়ানোর একটি রীতি-নীতি চালু রয়েছে। এই রীতি কিভাবে চালু হলো এবং পৃথিবীর অন্যান্য দেশে এইরকম রাীতি চালু আছে কিনা তা জানার জন্য আমি একটি অনুসন্ধান করি। প্রথমে আমি একটি বিষয়বস্তু নির্ধারণ করি। তারপর আমার অনুসন্ধানের জন্য প্রয়োজনীয় কিছু প্রশ্ন নির্ধারণ করি। পরিচিত নিকট আত্মীয়স্বজন (যারা দেশের বাহিরে থাকে) ও ইন্টারনেট এর একটি শিক্ষামূলক ওয়েবসাইট www.helptrickbd.com এর শিক্ষামূলক বিভিন্ন আর্টিকেল থেকে তথ্য গুলো জানার চেষ্টা করি। তথ্য নেয়া শেষ হলে সেগুলো যথাযথ বিশ্লেষণ করার চেষ্টা করি। সেগুলোর সত্যতা যাচাই করার জন্য আমার বড় ভাইয়ের সাহায্য নিলাম। এই অনুসন্ধানের মাধ্যমে আমি বুঝতে পারলাম পৃথিবীর প্রায় দেশে এমন রীতির প্রচলন রয়েছে বহুবছর পূর্ব থেকে। এছাড়াও নানা রকম রীতির প্রচলন বিভিন্ন দেশে লক্ষণীয়। আর এই রীতি-নীতির পিছনে অনেক গল্প রয়েছে। সব তথ্য সংগ্রহ ও যাচাই করার পর পরিশেষে, আমার তথ্য গুলো পরিচিত সকল সহপাঠীদের কাছে শেয়ার করি।

সপ্তম শ্রেণির ফেইসবুক স্টাডি গ্রুপে নিচের লিংক থেকে জয়েন করে নিন। সেখানে আমি প্রতিদিন বিভিন্ন বিষয়ের সমাধান ও ছকসমূহ পূরণ করে দিয়ে দিব। আর আপনাদের বিভিন্ন সমস্যা ও বাড়ির কাজ গুলো সেখানে পোষ্ট করবেন। আমি সেগুলো দেখব এবং ভুল থাকলে কারেকশন করে দিব।
ফেইসবুক স্টাডি গ্রুপ লিংক:  Click Here



যারা অনুসন্ধান ৩ এর নমুনা সমাধান দেখতে চান, তারা নিচের পিডিএফ টি দেখতে পারেন।


5 comments

  1. It is great but this site has no security
    1. আপনি কিসের সিকিউরিটি নেই বলেছেন? বুঝতে পারিনি
  2. hi
  3. নমুনা প্রশ্ন 3 এর উত্তর দিন
  4. নমুনা প্রশ্ন ৪ আর উওর দিন
Cookie Consent
We serve cookies on this site to analyze traffic, remember your preferences, and optimize your experience.
Oops!
It seems there is something wrong with your internet connection. Please connect to the internet and start browsing again.
AdBlock Detected!
We have detected that you are using adblocking plugin in your browser.
The revenue we earn by the advertisements is used to manage this website, we request you to whitelist our website in your adblocking plugin.
Site is Blocked
Sorry! This site is not available in your country.